Green Bangla

Green Bangla Story

বাড়িওয়ালির মেয়ে

Romantic Love Story Bari Walir Meye Bangla Story

পর্ব ১

---অনিক তারাতারি ঘুম থেকে উঠো।নামাজ পড়তে হবে।(আম্মু বলল)
---উঠছি আম্মু।
নামাজ শেষ করে পড়তে বসলাম। ৮ টার সময় আম্মু ডাকলো নাস্তা করার জন্য।
নাস্তার টেবিলে গিয়ে বসলাম।দেখি আব্বু মুখ ভার করে বসে আছে।আব্বুকে বললাম,আব্বু এমন করে বসে আছো কেনো?

Green Bangla

---এত সকাল সকাল আর আর অফিস যেতে ইচ্ছা করে না।(আব্বু বলল)
---কোনো সমস্যা আব্বু?
---এখান থেকে অফিস অনেক দূর। যেতে অনেক সময় লাগে।
---আব্বু এক কাজ করো।তোমার অফিসের কাছে বাসা নাও।এতে আমাদের দুজনেরই সুবিধা হবে।
---এজন্য একটা বাসা ঠিক করেছি।আমার অফিস আর তোর ভার্সিটির কাছেই।
---ভালো করেছো।প্রতিদিন আর এতদূর থেকে ক্লাস করতে ইচ্ছা করে না।এখন শান্তিতে যাওয়া যাবে।
---নতুন বাসায় আমাদের কবে নিয়ে যাবে?(আম্মু বলল)
---আজ ২১ তারিখ।১ তারিখে নতুন বাসায় উঠবো।
---ভালই হবে।
খাওয়া শেষ করে রুমে আসলাম।
একটু পর ভার্সিটির উদ্দেশ্যে বের হই।ওহ আপনাদের কাছে আমার পরিচয়ই দেওয়া হয়নি।আমি অনিক।আম্মু আব্বুর একমাত্র ছেলে।এরজন্য একটু বেশি আদর করে।লেখাপড়া করি ঢাকায় একটা প্রাইভেট ভার্সিটিতে।
ভার্সিটিতে পৌচ্ছে দেখি বন্ধুরা সবাই চলে আসছে।
---তোর এতক্ষন আসার সময় হলো?(রাফি বলল)
---সরি দোস্ত একটু জ্যামে পরেছিলাম।তাই দেরি হয়ে গেলো।(আমি বললাম)
---এটা তো তোর প্রতিদিনের কথা।এর জন্য শাস্তিস্বরুপ তোকে আজ একটা কাজ করে দিতে হবে।কথা দে কাজটা তুই করবি?(আকাশ বলল)
---তোদের কথা কখনও কি না করেছি?(আমি বললাম)
---তারপরও ভেবে বল।হাজার হলেও শাস্তির কাজ।(রাফি বলল)
---কোনো কিছু না ভেবে বলে দিলাম তোদের দেওয়া কাজটা করবো।(আমি বললাম)
---পরে কিন্তু না করতে পারবি না।(রাফি বলল)
---আমাকে দেখে কি তোদের কাপুরুষ মনে হয়?(আমি বললাম)
---না।(রাফি বলল)
---তাহলে কি কাজ করতে হবে সেটা বল?(আমি বললাম)
---কাজটা হলো......(বলতে গিয়ে আকাশ থেমে গেলো)
---আরে থামলি ক্যান?(আমি বললাম)
----আমরা দুজন মিলে বুদ্ধি করেছি এখন যে মেয়ে গেট দিয়ে ভিতরে প্রবেশ করবে তাকে প্রপোজ করবি।(রাফি বলল)
----এমনটা তোদের থেকে আশা করিনি।এ কাজ আমি পারবো না।(আমি বললাম)
---তুই কিন্তু কথা দিয়েছিস আমরা যা বলবো তাই করবি।(আকাশ বলল)
---আচ্ছা প্রপোজ করবো,এখন তোরা থাম।দেখি কোন সুন্দরি আছে আমার কপালে।(আমি বললাম)
বেশিক্ষণ অপেক্ষা করতে হলো না।দূরে একটা মেয়ে দেখা যাচ্ছে।এদিকেই আসছে।নিজেকে প্রস্তুত করতে লাগলাম।মেয়েটা আরও কাছে চলে আসলো।মেয়েটাকে দেখে ভূত দেখার মতো চমকে উঠলাম।এ তো রাফির গার্লফ্রেন্ড।
---রাফি আমাকে বলল তোকে কোনো প্রপোজ করতে হবে না।
---কেনো রে?আমি প্রপোজ করবই।(আমি বললাম)
----অনেক কষ্টে একটা প্রেম করছি সেটা তুই আর ভেঙ্গে দিস না।(রাফি বলল)
---তোর প্রেম জাহান্নামে যাক।তাতে আমার কিছু করার নেই।(আমি বললাম)
---দোস্ত তোর পায়ে ধরি তুই ওরে কিছু বলিস না।(রাফি বলল)
---না দোস্ত আমি প্রপোজ করবোই।(আমি বললাম)
---তোকে এক হাজার টাকা দিচ্ছি তাও বলিস না।(রাফি বলল)
---আচ্ছা বলবো না।(আমি বললাম)
---তোকে কিন্তু প্রপোজ করতেই হবে।(আকাশ বলল)
---এবার যদি তোর গার্লফ্রেন্ড আসে?(আমি বললাম)
---আসবে না।তুই প্রপোজ করার জন্য রেডি হ।(আকাশ বলল)
প্রপোজ করার জন্য রেডি হয়ে আছি।বেশিক্ষন অপেক্ষা করতে হলো না।একটা সুন্দরি মেয়ে আমার দিকে আসতে লাগলো।
---এই মেয়ে দাড়াও!(আমি বললাম)
---আমাকে ডাকছেন?(মেয়েটি বলল)
---জ্বি তোমাকে।(আমি বললাম)
---কেনো ডেকেছেন?(মেয়েটি বলল)
---I love you আমি তোমাকে ভালোবাসি।(আমি বললাম)
---কি বললেন বলে মেয়েটি আমাকে একটা থাপ্পর মেরে দিলো।
---আমিও মেয়েটাকে উল্টো দুটো থাপ্পর মেরে দিলাম।
---আপনার সাহস তো কম না আমাকে থাপ্পর মারলেন?(মেয়েটি বলল)
---হ্যা মেরেছি। তো কি হয়েছে।(আমি বললাম)
---আপনাকে আমি ইভটিজিং এর দয়ে পুলিশে দেবো(মেয়েটা বলল)

Post a Comment

[blogger][facebook]

Contact Form

Name

Email *

Message *

Powered by Blogger.
Javascript DisablePlease Enable Javascript To See All Widget