Green Bangla

Green Bangla Story

বাড়িওয়ালার রাগি মেয়ে

Bari Walar Ragi Meye Bangla Love Story.

পর্বঃ ১

সিগারেট খেয়ে নাক দিয়ে ধোয়া ছাড়ছি আর ভাবছি,, যদি সিগারেট না আবিষ্কার হতো তাহলে আমার মত হাজারও প্রেমিক না খেতে পেয়ে মারা যেত।।
Green Bangla Love Story


হঠাৎ করেই মোবাইলে শারুখ খানের জিরো মূভির রিংটোনটা বেজে উঠলো।।

নাম্বার না দেখেই কল রিসিভ করলাম।। তারপর ওপর পাশ থেকে কোনো মেয়ের মধুর কন্ঠে শুনতে পেলাম

---- অসভ্য,লুইচ্চা,ফাউল পোলা,তোরে হাতের সামনে পাইলে যে কি করতাম

--- দুঃখিত আপনি ভুল নাম্বারে কল করেছেন।।

এই বলে কল কেঁটে দিলাম।।

তারপর  ভাবতে থাকলাম।।

কোনদিন আইলোরে ভাই আজকাল মেয়েরা ফোন করার সাথে সাথেই গালাগালি শুরু করে দেয়।।

মোবাইলের স্কিনের উপর যখন চোখ পড়লো তখন মনে হলো আমি পৃথিবীর বাইরে চলে গেছি।।

কারন একটু আগে আমাকে যে কল দিয়ে গালাগালি করলো সে আর কেও নয় আমার দশটা না পাঁচটা না একটা মাএ  ক্রাস।।

বাড়িওয়ালার একমাএ মেয়ে।। যেমন রাগী তেমন সুন্দরি।।

নামটাও অনেক সুন্দর।।  আদিবা।।

ওকে দেখলেই আমার তাকিয়ে থাকতে মন চায়।।

যাই হোক এবার আমার পরিচয়টা দেই।।

আমি রবি আল ইসলাম।। অনার্স ১ম বর্ষে পড়ি।। আর আদিবাও আমার সাথে পড়ে।।

ও সাইন্স এ আর আমি কমার্সে।। 

আমার সাথে কোনোদিনও ভালো ব্যবহার করে নাই।।

আর একটু আগে আমাকে এভাবে গালি দেওয়ার কারনটা বলি।।

কলেজে বন্ধুদের সাথে আড্ডা দিচ্ছি।। হঠাৎ দেখলাম আদিবা একটা ছেলের সাথে ঘুরাঘুরি করছে।।

দেখে তো মাথাটা সেই লেভেলের গরম হয়ে গেছে।।

তারপর আদিবা ছেলেটার কাছ থেকে যাওয়ার পর ওর কাছে গিয়ে বললাম

--- ভাই একটু আগে যে মেয়েটার সাথে ঘুরাঘুরি করছো।। ও তোমার কি হয়??

ছেলেটাঃ হয় অনেক কিছু আপনাকে কেনো বলতে যাবো??

-- আমাকেই তো বলতে হবে।। কারন আমি ওই মেয়েটার বয়ফ্রেন্ড।।

তিন বছর ধরে আমাদের রিলেশন।। আর কিছুদিন পড়ে দুই পরিবারের সম্মতিতে আমাদের বিয়েও হবে।।

ছেলেটাঃ কি?? আদিবার বয়ফ্রেন্ড আছে আর আমাকে সেটা বললো না।।

-- তা এখন তো জানলেন ভাইয়া।। এর পর আর ওর সাথে ঘুরাঘুরি করবেন না।।

ছেলেটাঃ প্রশ্নই আসে না।।

ছেলেটাকে এসব বলে কলেজ থেকে চলে আসলাম।।

তারপর দোকানে এসে সিগারেট খেতে লাগলাম।।

তারপর কি হলো তা তো জানেন ই।।

ভাবছি বাসায় গেলে আজকে কি হবে??

আমার মা তো আমার থেকেও বেশি আদিবাকে ভালোবাসে।।

হয়তো সারাদিন রোজা রেখেই থাকতে হবে।।

তারপর আবার আদিবা।। ও যদি আমাকে হাতের কাছে পায় তাহলে তো আমি শেষ।।

আর বাসায় না গেলেও আবার ঝামেলা।।

এসব ভাবছি আর বাসার দিকে পা বাড়াচ্ছি।।

ভয়ে ভয়ে গেট দিয়ে বাসার ভিতর ডুকলাম।। না পরিবেশ শান্ত আছে।।

বাসায় আসার পর মাকে ডাক দিয়ে বললাম ভাত দিতে।।

কিন্তু ২০ মিনিট হয়ে গেল তারপরও মা ভাত নিয়ে আসলো না।।

তারপর আবার ডাক দিলাম।। কিছুখন পর মা এসে বললো

মাঃ এভাবে চিল্লাচ্ছিস কেনো??

-- কোন সময় ভাত খাওয়ার কথা বললাম।। আর তুমি বলছো চিল্লাচ্ছি কেনো।।

মাঃ আজকে যে তোমার ভাত খাওয়া বন্ধ বাবা।।

--- কেনো এই ধর্মঘট আম্মাজান??  জানতে পারি??

মাঃ হারামজাদা অপরাধ করে আবার ন্যাকামো করা হচ্ছে।। তুই জানিস না তুই কি করেছিস??

-- জানলে কি আর আপনার কাছে জানতে চাইতাম আম্মাজান।।

মাঃ তুই আদিবার বন্ধুকে কেনো বলেছিস যে আদিবা ভালো মেয়ে না অনেক খারাপ একটা মেয়ে।।

ওর নামে ওর বাবার কাছে প্রতিদিন বিচার আসে।। ওর চলাফেরা ভালো না।।

-- আম্মাজান আপনি তো আপনার ছেলেকে চিনেন।। আপনার বিশ্বাস হয় আপনার ছেলে এইরকম একটা কাজ করতে পারবে।।

মাঃ তোকে চিনি বলেই তো বিশ্বাস হচ্ছে।।
আর তোর শাস্তি হলো আজকে তুই ভাত খেতে পারবি না।।

--- তাহলে খাবো কি??

মাঃ পানি।।

--- না থাক।।  ভাত না খেলে পানি খেয়ে কি করবো।।

এই বলে রুমে চলে আসলাম।। ভাবছি ঝড় তো এখনও শেষ হয় নায়। এখনও তো সিডর মানে আদিবা বাকি আছে।।

না ওর সামনে কিছুতেই পড়া যাবে না।।

এসব ভাবছি বিছানায় শুয়ে শুয়ে।।

কিছুখন পর ছোটবোন জান্নাত রুমে এসে বললো

জান্নাতঃ ভাইয়া মায়ের কাছে শুনলাম আজকেও নাকি আপনি রোজা রাখবেন??

-- ঠিকই শুনেছিস।। তুই যা এবার।।

জান্নাতঃ আমি তো আর এখানে থাকতে আসি নাই।। তা ভাইয়া তোমাকে একটা বিষয়ে সতর্ক করতে আসলাম।।

--- কি সতর্ক??

জান্নাতঃ আদিবা আপুকে দেখলাম মেজাজ খুবই গরম।। তাই দুই-- একদিনে ওর সামনে যাইয়ো না।

-- এমনি অনেক টেনশনে আছি তুই আর ভয় দেখাইস না।।  যা তো এখান থেকে।।

জান্নাতঃ যাচ্ছি।। তোমাকে শুধু সাবধান করতে আসলাম।।

জান্নাত চলে যাবার পর ভাবতে থাকলাম কোনমতেই ২ / ৩ দিনে ওই রাগী মেয়ের সামনে যাওয়া যাবে না।।

ফেইসবুকে ডুকলাম।।  প্রতিদিনের মত আজকেও একই কাহিনি।।

অনেকদিন ধরেই একটা মেয়ে ম্যাসেজ দিচ্ছে।। হায়, হ্যালো, কেমন আছেন? কি করেন? খাইছেন?

এর বাইরে আর কিছু না।। সকালে, দুপুরে, রাতে শুধু এই ম্যাসেজ গুলাই দেয়।।

আজকেও তার ব্যতিক্রম হলো না।।

মেয়েটার নাম রোদেলা।

রোদেলাঃ হায়।।

--- হ্যালো।

রোদেলাঃ কেমন আছেন??

--- ভালো।।  আপনি??

রোদেলাঃ ভালো।। কি করেন??

--- সুয়ে আছি।। আপনি??

রোদেলাঃ আমিও শুয়ে আছি।।

--- ভালো

রোদেলাঃ হুমমমম।। খাইছেন??

-- না।  আপনি??

রোদেলাঃ হুমমমম

--- আচ্ছা আপনি কোন ক্লাসে পড়েন??

রোদেলাঃ আপনি কোন ক্লাসে পড়েন??

--- অনার্স ফাস্ট ইয়ার।। আপনি??

কি হলো ক্লাসের কথা বলায় চুপ হয়ে গেলেন কেনো??

আচ্ছা শুধু এটা বলেন আপনি কি আমার সিনিয়র?

রোদেলাঃ না।।

--- ওকে।।

রোদেলাঃ কি ওকে??

--- কিছুনা।।

রোদেলাঃ বলেন??

--- কি বলবো??

রোদেলাঃ কি ওকে??

--- মাফ কইরা দেন আপু??

রোদেলাঃ ওকে।।

--- জিবনেও আর কাউকে ওকে বলবো না।।

রোদেলাঃ হুমমমম।

তার পর  অফলাইনে চলে আসলাম।।

কিছুখন পর আবার জান্নাত আসলো.....

চলবে-------


লেখকঃ Rabi Al Islam

Post a Comment

[blogger][facebook]

Contact Form

Name

Email *

Message *

Powered by Blogger.
Javascript DisablePlease Enable Javascript To See All Widget